Muslims attack Buddhist temple, houses in Cox’s Bazar’s Ramu

কক্সবাজার, সেপ্টেম্বর ৩০ (বিডিনিউজ টোয়েন্টফোর ডটকম)

কক্সবাজারের রামু উপজেলায় কুরআন শরীফ অবমাননার অভিযোগ এনে দলবেধে একদল লোক একটি বৌদ্ধপাল্লীতে হামলা, অগ্নিসংযোগ ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটিয়েছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছন।

শনিবার দিবাগত রাত দেড়টা পর্যন্ত ৩টি বৌদ্ধ মন্দির সহ প্রায় ১৫ টি বাড়িতে অগ্নিসংযোগের খবর পাওয়া গেছে। ভাঙচুর হয়েছে শতাধিক বাড়ি।

রামুর স্থানীয় লোকজন জানান, ফেইসবুকে কুরআন শরীফ অবমাননা করে ছবি সংযুক্ত করার অভিযোগ এনে শনিবার রাত ১০ টায় একটি ইসলামী দলের কয়েকজন নেতার নেতৃত্বে একটি মিছিল বের করা হয়। মিছিল শেষে সমাবেশে বক্তারা দাবি করেন, রামু উপজেলার বৌদ্ধ পাড়ার উত্তম বড়ুয়া নামের এক যুবকের ফেইসবুক একাউন্টে কুরআন অবমাননাকর ছবিটি পোস্ট করা হয়েছে। বক্তরা ওই যুবককে আটকের দাবি জানান।

সমাবেশ শেষ হওয়ার কিছু পর ফের আবারো একটি মিছিল বের হয়। মিছিলটি রাত সাড়ে ১১ টার দিকে রামু বড়ুয়া পাড়ার দিকে এগিয়ে যায়। মিছিলটি ওই পাড়ায় পৌঁছার সাথে সাথে মিছিলের কয়েকজন যুবক বড়ুয়াদের কয়েকটি বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে। এর পর থেকে কমপক্ষে ১৫ টি বসত বাড়ি, ‘সাদা চিং’ ও ‘লাল চিং’ নামের ২ টিসহ ৩টি বৌদ্ধ মন্দিরে অগ্নিসংযোগ করা হয়। ভাঙচুর হয় শতাধিক বাড়ি।

Religion in Bangladesh: a Facebook post that drew debate

Bangladeshi Hindus: The Satkhira frustration

Form body to probe repression: HC asks govt

 

ঘটনাস্থল থেকে স্থানীয়রা জানিয়েছেন, রাত দেড় ১ টা পর্যন্ত অগ্নিকাণ্ড অব্যাহত রয়েছে। পুলিশ সহ প্রশাসনিক কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধিরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছেন।

স্থানীয় দীপক বড়ুয়া জানান, ৩টা মন্দির, বাড়ি ১৫টি সম্পূর্ণ পুড়িয়ে দিয়েছে হামলাকারীরা।

স্থানীয় এক সাংবাদিক আক্রান্ত এলাকায় পরিবার পরিজন নিয়ে লুকিয়ে থাকা অবস্থায় বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, তার বাড়ির পাশের চেরাংঘাটা বড়ক্যাং মন্দিরটিতে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। রাত পৌনে তিনটায় তিনি বলেন, ওই মন্দিরে আগুন নিভে গেছে।

এছাড়া, রামু মৈত্রী বিহার, সাদা চিংলাল, রামু সীনা বিহার ও জাদীপাড়া বৌদ্ধ বিহারে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে।

সবকটি মন্দিরে ভাংচুর ও লুটতরাজ করা হয়েছে।

কমপক্ষে ১০টি বৌদ্ধ গ্রামে হামলা চালানো হয়েছে। পূর্ব মেরোংলোয়া পাড়াটি আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে। সেখানে ১০/২০টি ঘর ছিল বলে জানান তিনি।

রামু উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সোহেল সরওয়ার কাজল জানান, উত্তেজনার নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করা হচ্ছে।

কক্সবাজারের পুলিশ সুপার সেলিম মো. জাহাঙ্গীর জানিয়েছেন, তিনি ঘটনাস্থলে রয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার প্রচেষ্টা করছেন। পরে বিস্তারিত বলা যাবে।

এদিকে, উত্তমের কযেকজন ফেইসবুক ফ্রেন্ড জানিয়েছেন, উত্তম বড়ুয়া নামের রামুর যুবকের ফেইসবুকে কুরআন অবমাননাকর ছবিটি প্রদর্শিত হলেও এজন্য ওই যুবক দায়ী নয়। কারণ তার ফেইসবুকে ইনসাল্ট আলাহ নামের এক ফেইসবুক আইডি থেকেই ছবিটি শেয়ার/ট্যাগ করে দেয়া হয়েছে।

সীমান্তের ওপারে মায়ানমারের রাখাইন প্রদেশে রোহিঙ্গাদের ওপর হামলার পর তাদের বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের চেষ্টা নিয়ে ব্যাপক শোরগোল তৈরি হয়। বাংলাদেশ সরকার অনুপ্রবেশ ঠেকালে দেশের নাগরিক সমাজের একটি অংশ প্রতিক্রিয়া প্রকাশ করে। সরকার এ ঘটনায় সাম্প্রদায়িক শক্তির ইন্ধন ছিল বলে মনে করছে।

One thought on “Muslims attack Buddhist temple, houses in Cox’s Bazar’s Ramu

  1. Pingback: Jamaat-extremists, BNP MP blamed for Cox’s Bazar communal riot « fight corruption, crime & cruelty

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s